সমাস পরিচিতি

Spread the love

সমাস পরিচিতি

দুই বা ততোধিক পদ মিলিত হয়ে এক পদে পরিণত হওয়াকে সমাস বলে। সমাস কথাটির অর্থ সংক্ষেপণ বা একাধিক পদের একপদীকরণ। অর্থের দিক থেকে মিল আছে এমন দুই বা ততোধিক শব্দ মিলে একটি শব্দ হওয়ার প্রক্রিয়াকে সমাস বলে। বাক্যে শব্দের ব্যবহার সংক্ষেপ করার উদ্দেশ্যে সমাসের সৃষ্টি। সমাস দ্বারা দুই বা ততোধিক শব্দের সমন্বয়ে নতুন অর্থবোধক পদ সৃষ্টি হয়।

ভাষাতত্ত্ববিদগণ নানাভাবে সমাস এর সংজ্ঞায়ন করেছেন-
পরস্পর সম্পর্কিত দুই বা তার বেশি শব্দ একসঙ্গে মিলে সমাস হয়।
পরস্পর অন্বয়যুক্ত দুই বা ততোধিক পদের সামষ্টিক রূপ সমাস ।

সমস্যমান পদ সমস্তপদ
হাঁটু পরিমাণ জল = হাঁটু জল
ব্যাসবাক্য/বিগ্রহবাক্য পূর্বপদ পরপদ

সমস্তপদ:
সমাস নিষ্পন্ন পদকে সমস্তপদ বলে
( উদাহরণে হাঁটু জল সমস্ত পদ)

পূর্বপদ ও পরপদ:
সমস্ত পদের প্রথম অংশকে বলে পূর্বপদ এবং পরের অংশকে বলে পরপদ ।
( উদাহরণে হাঁটু পূর্বপদ এবং জল পরপদ)

ব্যাসবাক্য/বিগ্রহবাক্য:
সমস্তপদকে ভেঙে যে বাক্যাংশ পাওয়া যায় তাকে ব্যাসবাক্য বা বিগ্রহবাক্য বলে।
( উদাহরণের হাঁটু পরিমাণ জল বাক্যাংশটি ব্যাসবাক্য বা বিগ্রহবাক্য)

সমস্যমান পদ:
ব্যাসবাক্যের যে কয়েকটি পদ মিলে সমাস হয় বা সমস্তপদ গঠিত হয় তাদের প্রত্যেক অংশকে সমস্যমান পদ বলে।

Leave a Comment

Your email address will not be published.

Scroll to Top