বাংলা ভাষায় আরবি- ফারসি শব্দের প্রভাব আলোচনা কর

Spread the love

বাংলা ভাষায় আরবি-ফারসি শব্দের প্রভাব আলোচনা কর

বাংলা ভাষায় বৈদেশিক প্রভাবের নমুনা প্রধানত বাংলা শব্দসম্ভবের মধ্যেই লক্ষ করা যায়।এ দেশে মুসলমানদের আগমনের প্রেক্ষিতে আরবি, ফারসি, তুর্কি প্রভৃতি শব্দের অনুপ্রবেশ ঘটেছে। অন্যদিকে ব্যবসা বাণিজ্যের কারণে ইউরােপের সঙ্গে সংযােগের ফলে এসেছে পর্তুগিজ, ওলন্দাজ, ফরাসি, দিনেমার প্রভৃতি ভাষার শব্দ।

বাংলা ভাষায় বিদেশি শব্দের প্রবেশের কারণ বাংলাদেশের সঙ্গে বাইরের বিভিন্ন জাতির মানুষের যোগাযোগ। ঐতিহাসিক কারণে বিদেশি ভাষা, সংস্কৃতি ও সভ্যতার সঙ্গে বাঙালির ঘনিষ্ঠ যােগাযােগের ফলে প্রচুর বিদেশি শব্দ বাংলায় স্থান পেয়েছে এবং এখন পর্যন্ত তার অনুপ্রবেশ ঘটছে। মুসলমান শাসকেরা দীর্ঘদিন এদেশ শাসন করেছে।তারা ছিল বহিরাগত। তাদের ধর্মীয় ভাষা আরবি, রাজভাষা ফারসি এবং ঘরােয়া ভাষা ছিল তুর্কি। তাই এ তিনজাতের শব্দ ফারসি পরিচয়ে বাংলা ভাষায় বিদ্যমান।অনেক ফারসি শব্দ এদেশের ভাষায় এমনভাবে মিশে গেছেযে তাদের আলাদা করে চিহ্নিত করা কঠিন। এমনকি অনেক ক্ষেত্রে বাংলা শব্দ বাদ দিয়ে ফারসি শব্দ নিজের স্থান করে নিয়েছে। সুনীতিকুমার চট্টোপাধ্যায় মনে করেন, প্রায় আড়াই হাজার ফারসি শব্দ বাংলায় প্রবেশ করেছে। খ্রিস্টিয় তের শতকের প্রথমে তুর্কি বিজয়ের পর থেকে ফারসি শব্দ বাংলায় ব্যবহৃত হতে থাকে।

ষােল শতকে ব্যবসা-বাণিজ্য উপলক্ষে এদেশে পর্তুগিজরা আসে। হুগলি, ঢাকা ও চট্টগ্রাম অঞ্চলে তারা বসের করত। প্রায় এক শ পর্তুগিজ শব্দ বাংলা ভাষায় স্থান পেয়েছে। আঠার শতকের মাঝামাঝি এদেশে পর্তগিজদের প্রভাব কমে যায়। শেষে এসেছে ইংরেজ। প্রায় দু শ বছর শাসনের ফলে ইংরেজি ভাষা এদেশে গভীর প্রভাব বিস্তার করেছে। এখনও প্রচুর ইংরেজি শব্দ বাংলায় প্রবেশ করছে। ইংরেজির মাধ্যমে পৃথিবীর অন্য ভাষার কিছু শব্দ বাংলায় গৃহীত হয়েছে। এভাবে বিভিন্ন ভাষার প্রচুর বিদেশি শব্দ বাংলা শব্দভাণ্ডারকে সমৃদ্ধ করেছে। বাংলা ভাষায় ব্যবহৃত কিছু আরবি ও ফারসি শব্দ নিম্নে তুলে ধরা হল-

আরবি শব্দ-

ধর্ম সংক্রান্ত শব্দ –  আল্লাহ, ঈমান, ইসলাম, ওযু, কোরবানি, কোরআন, হালাল, হারাম হাদিস, হজ, গোসল, কেয়ামত, জান্নাত, জাহান্নাম, তওবা, তসবি ইত্যাদি।
প্রশাসনিক ও সংস্কৃতি শব্দ – ঈদ, উকিল, আদালত, আলেম, ওজর, কলম, কিতাব, খারিজ, গায়েব, বাকি, নগদ, মহকুমা ইত্যাদি।

 ফারসি শব্দ

ধর্ম সংক্রান্ত শব্দ- খোদা, গুনহ,  দোযখ, নামাজ, পয়গম্বর, বেহেশত, রোজা ইত্যাদি।
প্রশাসনিক ও সাংস্কৃতিক শব্দ-চশমা ,তারিখ, তোশক, দফতর, দরবার, দোকান, দস্তখত, নালিশ, বেগম,মেথর ইত্যাদি।
বিবিধ শব্দ- আমদানি, রপ্তানি,জানোয়ার, নমুনা, বদমাশ, হাঙ্গামা ইত্যাদি। আরবি ,ফারসি শব্দ আগমনের মধ্য দিয়ে বাংলা ভাষা সমৃদ্ধি লাভ করেছে।

2 thoughts on “বাংলা ভাষায় আরবি- ফারসি শব্দের প্রভাব আলোচনা কর”

  1. Pingback: বাংলা ভাষার ইতিহাস ও ব্যবহারিক বাংলা সাজেসন্স | Cholo Shekhe

  2. Pingback: বাংলা ভাষার ইতিহাস ও ব্যবহারিক বাংলা সাজেসন্স | Cholo Shekhe

Leave a Comment

Your email address will not be published.

Scroll to Top