বাক্য পরিবর্তন

Spread the love

বাক্য পরিবর্তন

বাক্য পরিবর্তন

১ । আমার পথ দেখাবে আমার সত্য। (জটিল)
জটিল : যা সত্য, তা আমায় পথ দেখাবে।

২। অনুগ্রহ করে সব খুলে বলুন। (যৌগিক)
যৌগিক: অনুগ্রহ করুন এবং সব খুলে বলুন।

৩। আমাদের দেশ সুন্দরভাবে এগিয়ে যাচ্ছে। (বিস্ময়সূচক)
বিস্ময়সূচক: বাহ! আমাদের দেশ কী সুন্দরভাবে এগিয়ে যাচ্ছে।

৪। এ অনুষ্ঠানে আমি উপস্থাপনা করব। (নেতিবাচক)
নেতিবাচক: এ অনুষ্ঠানে আমি উপস্থাপনা না করে পারব না।

৫। আমি এ সাক্ষী চাই না। (জটিল)
জটিল: যে সাক্ষী এ রকম, তাকে আমি চাই না।

৬। আমার কথাটি ফুরালো। (নেতিবাচক)
নেতিবাচক :
আমার কথাটি চলমান রইল না। / আমার কথাটি অফুরান রইল না।

৭। আমার বুকের ভেতরটা হু হু করিয়া উঠিল। (নেতিবাচক)
নেতিবাচক :
আমার বুকের ভেতরটা হু হু না করে পারলাে না ।

৮। আকাশে মেঘ ছিল না, কিন্তু বজ্রপাত হলাে। (সরল)
সরল :
আকাশে মেঘ না থাকা সত্ত্বেও বজ্রপাত হলাে।

৯। আমি যে গান গাই, তাহা সাম্যের গান। (সরল)।
সরল :
আমি সাম্যের গান গাই।

১০। আমরা বাধা দিতে পারলাম না। (অস্তিবাচক)।
অস্তিবাচক :
আমরা বাধা দিতে ব্যর্থ হলাম।

১১। আমার নিবাস নাই। (জটিল)
জটিল :
যা নিবাস, তা আমার নাই।

১২। আজকাল কোনো জিনিসই সুলভ নয়। (অস্তিবাচক)
অস্তিবাচক :
আজকাল সব জিনিসই দুর্লভ।

১৩। আর কথা বাড়ানাের প্রয়ােজন নেই। (অস্তিবাচক)
অস্তিবাচক:
আর কথা বাড়ানাে নিষ্প্রয়ােজন।

১৪। আমার কেনা বইটি খুব দামি। (জটিল)
জটিল
: যে বইটি আমি কিনেছি, সেটা খুব দামী।

১৫। আমাদের মানসিক দাসত্ব মোচন হয় নাই। (প্রশ্নবোধক)
প্রশ্নবোধক :
আমাদের মানসিক দাসত্ব মোচন হয়েছে কি ?

১৬। আমরা নড়লাম না। (অস্তিবাচক)
অস্তিবাচক :
আমরা অনড় রইলাম। / আমরা স্থির রইলাম।

১৭। আমি তোমার সফলতা কামনা করি। (প্রার্থনা)
প্রার্থনা :
সৃষ্টিকর্তা তোমাকে সফল করুন।

১৮। মাত্র যে এলাে, সে একজন ছাত্র। ( সরল)
সরল :
মাত্র একজন ছাত্র এলাে।

১৯। আমরা যখন বাড়ি এসেছি, তখন রাত্রি শুরু হয়েছে। (যৌগিক)
যৌগিক :
আমরা বাড়ি এসেছি আর রাত্রি শুরু হয়েছে।

২০। এ গ্রামে একটি দরগাহ আছে এবং সেটি পাঠান যুগে নির্মিত হয়েছে। (জটিল)
জটিল :
এ গ্রামে যে দরগাহ আছে, সেটি পাঠান যুগে নির্মিত হয়েছে।

২১। আমি বহু কষ্টে শিক্ষা লাভ করেছি। (যৌগিক)
যৌগিক :
আমি বহু কষ্ট করেছি এবং শিক্ষা লাভ করেছি।

২২। আমরা পৌঁছে খবর পেলাম জাহাজ ছেড়ে চলে গেছে। (জটিল)
জটিল :
যখন আমরা পৌছলাম, তখন খবর পেলাম জাহাজ ছেড়ে চলে গেছে।

২৩। এ কথা স্বীকার করতেই হয়। (নেতিবাচক)
নেতিবাচক :
এ কথা অস্বীকার করা যায় না।

২৪। একেই কী বলে সভ্যতা? (নেতিবাচক)
নেতিবাচক :
একে সভ্যতা বলে না।

২৫। আমি আশা ছাড়তে পারিলাম না। (অস্তিবাচক)।
অস্তিবাচক :
আমি আশা ছাড়তে অপারগ।

২৬। এটি ভারি লজ্জার কথা। (বিস্ময়বোধক)
বিস্ময়বোধক :
ছি ছি! কী লজ্জার কথা।

২৭। আমার এমন কিছু নেই যা তোমাকে দিতে পারি। (সরল)
সরল :
তোমাকে দেওয়ার মতো আমার কিছুই নেই।

২৮। এ দেশ বড়ই বিচিত্র। (বিস্ময়বােধক)
বিস্ময়বোধক:
বাঃ! কী বিচিত্র এ দেশ।

২৯। আশেপাশে কোনো শব্দ নেই। (অস্তিবাচক)
অস্তিবাচক :
আশপাশ নীরব / নিস্তব্ধ।

৩০। ওরা আগামীকাল আসবে। (প্রশ্নবোধক)
প্রশ্নবোধক :
ওরা কি আগামীকাল আসবে না?

৩১। আইন মেনে চলা কর্তব্য। (অনুজ্ঞাবাচক)
অনুজ্ঞাবাচক :
আইন মেনে চলো।

৩২। ওকে চেনাই যায় না। (অস্তিবাচক)
অস্তিবাচক :
ওকে চেনাই দুষ্কর।

৩৩। ইহাদের ন্যায় রূপবতী রমণী আমার অন্তঃপুরে নাই। (জটিল)
জটিল :
ইহারা যেমন রূপবতী রমণী, তেমনটি আমার অন্তঃপুরে নাই।

৩৪। ভয়ংকর ঘটনা। (বিস্ময়সূচক)
বিস্ময়সূচক :
উহ! কী ভয়ংকর ঘটনা।

৩৫। কীর্তিমানের মৃত্যু নেই। (জটিল)
জটিল :
যিনি কীর্তিমান, তাঁর মৃত্যু নেই।

৩৬। ইহারা অন্য জাতের মানুষ। (নেতিবাচক)
নেতিবাচক :
আমরা যে জাতের মানুষ ইহারা তা নন।

৩৭। কেউ অন্ধের দুঃখ বুঝলো না। (প্রশ্নবোধক)
প্রশ্নবোধক :
কেউ কি অন্ধের দুঃখ বুঝলো ?

৩৮। উদারতা কৃপণের ধর্ম নয়। (অস্তিবাচক)
অস্তিবাচক :
কৃপণের ধর্ম অনুদারতা।

৩৯। কিন্তু বরফ গলিল না। (অস্তিবাচক)
অস্তিবাচক :
কিন্তু বরফ অগলিত রহিল।

৪০। এখানে আসতেই হলো। (নেতিবাচক)
নেতিবাচক :
এখানে না এসে পারলাম না।

৪১। কেউ মৃত্যুকে ফাঁকি দিতে পারে না। (প্রশ্নবোধক)
প্রশ্নবোধক :
কেউ কি মৃত্যুকে ফাঁকি দিতে পারে ?

৪২। কানপুরে গাড়ি আসিয়া থামিল। (যৌগিক)
যৌগিক :
কানপুরে গাড়ি আসিল এবং থামিল।

৪৩। এখন খাঁটি জিনিস সহজলভ্য নয়। (ইতিবাচক)
ইতিবাচক :
এখন খাঁটি জিনিস দুর্লভ।

৪৪। খেলা হচ্ছে জীবজগতের নিষ্পাপ কর্ম। (প্রশ্নবোধক)
প্রশ্নবোধক :
খেলা কি জীবজগতের নিষ্পাপ কর্ম নয় ?

৪৫। এখনই ডাক্তার ডাকা উচিত। (অনুজ্ঞাবাচক)
অনুজ্ঞাবাচক :
এখনই ডাক্তার ডাকো।

৪৬। কর্মের অনুরূপ ফল পাবে। (জটিল)
জটিল :
যেমন কর্ম করবে, তেমন ফল পাবে।

৪৭। কাজটা তোমার করা উচিত। (অনুজ্ঞাবাচক)
অনুজ্ঞাবাচক :
কাজটা তুমি করো।

৪৮। এটি ভারি লজ্জার কথা। (বিস্ময়সূচক)।
বিস্ময়সূচক :
ছি! কী লজ্জার কথা।

৪৯। বাংলাদেশের চির স্থায়িত্ব কামনা করি। (ইচ্ছাসূচক)
ইচ্ছাসূচক :
বাংলাদেশ চিরস্থায়ী হোক।

৫০। কাজ না করলে চলে যাও। (যৌগিক)
যৌগিক :
কাজ কর নতুবা চলে যাও।

৫১। এখানে আমি বহুদিন আগে এসেছি। (নেতিবাচক)
নেতিবাচক :
এখানে আমার আসা অল্প দিনের নয়।

৫২। গুণবান ব্যক্তি বিনয়ী হয়। (জটিল)
জটিল :
যিনি গুণবান, তিনি বিনয়ী হন।

৫৩। এতে দোষ নেই। (প্রশ্নবোধক)
প্রশ্নবোধক :
এতে দোষ কী ?

৫৪। এবার আমার একটি বিচিত্র অভিজ্ঞতা হলাে। (প্রশ্নবাচক)
প্রশ্নবাচক :
এবার কি আমার একটি বিচিত্র অভিজ্ঞতা হলো না?

৫৫। চুল পাকলেও তার বুদ্ধি পাকেনি। (জটিল)
জটিল :
যদিও তার চুল পেকেছে, তবুও তার বুদ্ধি পাকেনি।

৫৬। এত সাধনা করলাম কিন্তু তোমার মন পেলাম না। (সরল)
সরল :
এত সাধনা করেও তোমার মন পেলাম না।

৫৭। ছেলেটি অসুস্থতার জন্য অনুপস্থিত। (যৌগিক)
যৌগিক :
ছেলেটা অসুস্থ সুতরাং অনুপস্থিত।

৫৮। এটা কি মানুষের ধর্ম? (নির্দেশাত্মক)
নির্দেশাত্মক :
এটা তো মানুষের ধর্ম নয়।

৫৯। ছেলেটি গরিব হলেও মেধাবী। (যৌগিক)
যৌগিক :
ছেলেটি গরিব কিন্তু মেধাবী।

৬০। এমন দিনে তারে বলা যায়। (নেতিবাচক)।
নেতিবাচক :
এমন দিনে তারে কিছু না বলে পারা যায় না।

৬১। তার দর্শন মাত্রই আমরা প্রস্থান করলাম। (মিশ্র)
মিশ্র :
যখনই তার দর্শন পেলাম, তখনই আমরা প্রস্থান করলাম।

৬২. জীবনের জন্য বৃক্ষের দিকে তাকানো প্রয়োজন। (অনুজ্ঞাবাচক)
অনুজ্ঞাবাচক :
জীবনের জন্য বৃক্ষের দিকে তাকাও।

৬৩। তার আভাস পেতাম কিন্তু নাগাল পেতাম না। (জটিল)
জটিল :
যদিও তার আভাস পেতাম, তবুও তার নাগাল পেতাম না।

৬৪। জননী জন্মভূমি স্বর্গের চেয়েও প্রিয়। (প্রশ্নবোধক)
প্রশ্নবোধক :
জননী জন্মভূমি কি স্বর্গের চেয়েও প্রিয় নয় ?

৬৫। হৈম তাহার অর্থ বুঝিল না। (ইতিবাচক)
ইতিবাচক :
হৈম তাহার অর্থ বুঝিতে ব্যর্থ হইলাে ।

৬৬। জ্ঞানী বলেই তিনি বিনয়ী ছিলেন। (যৌগিক)
যৌগিক :
তিনি জ্ঞানী সুতরাং বিনয়ী ছিলেন।

৬৭। তোমাকে দেওয়ার মতো আমার কিছুই নেই। (জটিল)
জটিল :
যা তোমাকে দেওয়ার মতো, তা কিছুই আমার নেই।

৬৮। জাদুঘর আমাদের আনন্দ দেয়। (প্রশ্নবোধক)
প্রশ্নবোধক :
জাদুঘর কি আমাদের আনন্দ দেয় না?

৬৯। তুমি অধম বলে আমি উত্তম হবো না কেন (যৌগিক)
যৌগিক :
তুমি অধম তবে আমি উত্তম হবাে না কেন ।

৭০। জীবে দয়া করা উচিত। (অনুজ্ঞাবাচক)
অনুজ্ঞাবাচক :
জীবে দয়া করাে।

৭১। তিনি ধনী কিন্তু দাতা নন। (সরল)
সরল :
তিনি ধনী হলেও দাতা নন।

৭২। সত্য স্বীকার না করলে শাস্তি পাবে । (যৌগিক)
যৌগিক :
সত্য স্বীকার কর নতুবা শাস্তি পাবে।

৭৩। ত্যাগের এ মহিমা অপূর্ব। (বিস্ময়সূচক)
বিস্ময়সূচক :
বাহ! ত্যাগের এ মহিমা কী অপূর্ব।

৭৪। তুমি যা বললে তা অসত্য। (সরল)
সরল :
তুমি অসত্য বললে ।

৭৫। ঠাট্টার সম্পর্কটাকে স্থায়ী করিবার ইচ্ছা আমার নাই। (মিশ্র)
মিশ্র :
যা ঠাট্টার সম্পর্ক ,তা স্থায়ী করিবার ইচ্ছা আমার নাই।

৭৬। তিনি দরিদ্র কিন্তু সৎ। ( জটিল)
জটিল :
যদিও তিনি দরিদ্র, তবুও তিনি সৎ।

৭৭। তোমার এরূপ ব্যবহার অনুচিত। (নেতিবাচক)
নেতিবাচক :
তোমার এরূপ ব্যবহার করা উচিত হয়নি।

৭৮। তাদের ঘুম এখনো ভাঙেনি। (অস্তিবাচক)
অস্তিবাচক :
তারা এখনো ঘুমিয়ে রয়েছে।

৭৯। তারা কি যাবে না কোথাও? (অস্তিবাচক)
অস্তিবাচক :
তারা কোথাও যাবে।

৮০। তার নাম রেশমা। (প্রশ্নবোধক)
প্রশ্নবোধক :
তার নাম কি রেশমা নয়?

৮১। তাদের গ্রামে আসা চলে না। (প্রশ্নবোধক )
প্রশ্নবোধক :
তাদের গ্রামে আসা চলে কি?

৮২। তারা নিয়মিত শিক্ষার্থী নয়। (ইতিবাচক)
ইতিবাচক :
তারা অনিয়মিত শিক্ষার্থী।

৮৩. দৃশ্যটি বড়ই সুন্দর। (বিস্ময়সূচক)
বিস্ময়সূচক :
বাহ! দৃশ্যটি বড়ই সুন্দর।

৮৪। ত্যাগের এ মহিমা অপূর্ব। (বিস্ময়বোধক)
বিস্ময়বোধক :
বাহ! ত্যাগের কী অপূর্ব মহিমা।

৮৫। তুমি অন্যায় করেছ। (নেতিবাচক)
নেতিবাচক :
তুমি ন্যায় করনি।

৮৬। দেশপ্রেমিককে কে না ভালোবাসে? (নির্দেশক)
নির্দেশাত্মক :
দেশপ্রেমিক কে সবাই ভালোবাসে ।

৮৭। তুমি ও সে একই দৈর্ঘ্যের। (নেতিবাচক)
নেতিবাচক :
তুমি ও সে অসম দৈর্ঘ্যের নও।

৮৮। তাহাদের কি গ্রামে ফিরে আসা চলে ? (নেতিবাচক)
নেতিবাচক :
তাহাদের গ্রামে ফিরে আসা চলে না।

৮৯। দরিদ্রের ব্যথা কেউ বোঝে না। (প্রশ্নবোধক)
প্রশ্নবোধক :
দরিদ্রের ব্যথা কেউ বোঝে কি ?

৯০। দেশকে ভালোবেসে শত শহিদ জীবন উৎসর্গ করেছেন। (প্রশ্নবোধক)
প্রশ্নবোধক :
দেশকে ভালোবেসে শত শহিদ কি জীবন উৎসর্গ করেননি?

৯১। ফরিয়াদি প্রসন্ন গোয়ালিনী। (জটিল)
জটিল :
যে ফরিয়াদি, সে হচ্ছে প্রসন্ন গোয়ালিনী।

৯২। দুর্জনকে দূরে রাখা উচিত। (অনুজ্ঞাবাচক)
অনুজ্ঞাবাচক :
দুর্জনকে দূরে রাখাে।

৯৩। বিদ্বান হলেও তার অহংকার নেই। (যৌগিক)
যৌগিক :
সে বিদ্বান কিন্তু নিরহংকারী।

৯৪। ধনীর কন্যা তার পছন্দ নয়। (অস্তিবাচক)
অস্তিবাচক :
ধনীর কন্যা তার অপছন্দ।

৯৫। ধর্ম আমাদের ইসলাম কিন্তু প্রাণের ধর্ম আমাদের তারুণ্য। (সরল)
সরল :
ইসলাম আমাদের ধর্ম হলেও প্রাণের ধর্ম আমাদের তারুণ্য।

৯৬। বাড়িটা তারা দখল করেছে। (নেতিবাচক)
নেতিবাচক :
বাড়িটা তারা দখল না করে পারেনি।

৯৭। বিড়ালকে বুঝানাে দায় হইল। (নেতিবাচক)
নেতিবাচক :
বিড়ালকে বুঝানাে সহজ হইলা না।

৯৮। বিপদে অধীর হতে নেই। (অনুজ্ঞাসূচক)
অনুজ্ঞাসূচক :
বিপদে অধীর হয়ো না।

৯৯. বৃক্ষের দিকে তাকালে জীবনের তাৎপর্য উপলব্ধি সহজ হয়। (নেতিবাচক)
নেতিবাচক:
বৃক্ষের দিকে তাকালে জীবনের তাৎপর্য উপলব্ধি কঠিন হয় না।

১০০। নির্বোধকে এত বুঝিয়াে না। (জটিল)
জটিল :
যারা নির্বোধ, তাদের এত বুঝিয়াে না।

১০১। নারী ও শিশু নির্যাতনের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করতে আহ্বান জানাই। (অনুজ্ঞাবাচক)
অনুজ্ঞাবাচক :
নারী ও শিশু নির্যাতনের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করো।

১০২। বৃষ্টির অভাবে ফসল নষ্ট হবে। (জটিল)
জটিল :
যেহেতু বৃষ্টির অভাব হবে, সেহেতু ফসল নষ্ট হবে।

১০৩। পঞ্চাশের মন্বন্তরের ঘটনা ছিল অত্যন্ত ভয়াবহ। (বিস্ময়সূচক)
বিস্ময়সূচক :
উহ! পঞ্চাশের মন্বন্তরের ঘটনা ছিল কতই ভয়াবহ।

১০৪। পৃথিবী চিরস্থায়ী নয়। (অস্তিবাচক)
অস্তিবাচক :
পৃথিবী ক্ষণস্থায়ী।

১০৫। বেশিরভাগ লোকই বেদের অর্থ বুঝত না। (অস্তিবাচক)
অস্তিবাচক :
খুব কম লোকই বেদের অর্থ বুঝত।

১০৬। পৃথিবীতে অবাস্তব বলতে কিছুই নেই। (জটিল)
জটিল :
যা অবাস্তব, তা পৃথিবীতে কিছুই নেই।

১০৭। পড়াশোনা করো , নচেৎ ভবিষ্যৎ অন্ধকার। (জটিল)
জটিল:
যদি পড়াশোনা না করো, তবে ভবিষ্যৎ অন্ধকার।

১০৮। বিপন্নদের সেবা করা কর্তব্য। (অনুজ্ঞাসূচক)।
অনুজ্ঞাসূচক :
বিপন্নদের সেবা করাে।

১০৯। বাঁশির সুরটি সুমধুর। (বিস্ময়বোধক)
বিস্ময়বোধক :
বাহ! বাঁশির সুর কী সুমধুর।

১১০। বিজ্ঞান কখনো শিক্ষার প্রধান বিষয়বস্তু হতে পারে না। (প্রশ্নবোধক)
প্রশ্নেৰাধক :
বিজ্ঞান কখনো শিক্ষার প্রধান বিষয়বস্তু হতে পারে কি?

১১১। ভাষায় অক্ষরের ভূমিকা মুখ্য নয়। (অস্তিবাচক)
অস্তিবাচক :
ভাষায় অক্ষরের ভূমিকা গৌণ।

১১২। ভালো ছেলেরা শিক্ষকের আদেশ পালন করে। (মিশ্র)
মিশ্র:
যারা ভালো ছেলে , তারা শিক্ষকের আদেশ পালন করে।

১১৩। মুক্তিযুদ্ধের শহিদদের স্মরণ করা উচিত। (জটিল)
জটিল :
যাঁরা মুক্তিযুদ্ধে শহিদ, তাঁদের স্মরণ করা উচিত।

১১৪। যে লোক চরিত্রহীন, সে পশুর চেয়েও অধম। (সরল)
সরল :
চরিত্রহীন লোক পশুর চেয়েও অধম।

১১৫। মানুষটা সমস্ত রাত খেতে পাবে না। (প্রশ্নবোধক)
প্রশ্নবোধক :
মানুষটা সারারাত খেতে পাবে কি?

১১৬। মুক্ত বাতাসে খুব ভালো লাগছে। (বিস্ময়সূচক)
বিস্ময়সূচক :
বাহ! মুক্ত বাতাসে খুব ভালো লাগছে।

১১৭। যখন মেঘ গর্জন করে তখন ময়ূর নৃত্য করে। (সরল)
সরল :
মেঘ গর্জন করলে ময়ূর নৃত্য করে।

১১৮। মাতৃভূমিকে সবাই ভালোবাসে। (নেতিবাচক)
নেতিবাচক :
মাতৃভূমিকে কেউ ঘৃণা করে না।

১১৯। মরতে তাে একদিন হবেই। (প্রশ্নবোধক)
প্রশ্নবোধক :
মরতে কি একদিন হবে না?

১২০। যে রক্ষক, সে ভক্ষক। (যৌগিক)।
যৌগিক :
সে রক্ষক আর ভক্ষক।

১২১। যা দেখলাম তা ভোলার নয়। (বিস্ময়সূচক)।
বিস্ময়সূচক :
কী যে দেখলাম তা ভোলার নয়!

১২২। যতদিন জীবিত থাকব, ততদিন এ ঋণ স্বীকার করব। (সরল)
সরল :
আজীবন এ ঋণ স্বীকার করব।

১২৩। সৎ লোক কখনো মিথ্যার সাথে আপস করে না। (জটিল)
জটিল :
যে সৎ লোক, সে কখনো মিথ্যার সাথে আপস করে না।

১২৪। মেয়েটির গানের গলা খুব সুন্দর। (বিস্ময়সূচক)
বিস্ময়সূচক :
বাহ! কী সুন্দর মেয়েটির গানের গলা।

১২৫। যার মনে মিথ্যা, সেই মিথ্যাকে ভয় করে। (সরল)
সরল :
মনে মিথ্যা থাকলেই সে মিথ্যাকে ভয় করে।

১২৬। মেঘনা আসামের লুসাই পাহাড় থেকে উৎপন্ন হয়ে সাগরে পড়েছে। (যৌগিক)
যৌগিক :
মেঘনা আসামের লুসাই পাহাড় থেকে উৎপন্ন হয়েছে এবং সাগরে পড়েছে।

১২৭। যেসব পশু মাংস খায়, তারা অত্যন্ত বলবান। (সরল)
সরল :
মাংসাশী পশু অত্যন্ত বলবান।

১২৮। যারা সংস্কৃতিবান, তারা শান্তি প্রিয় হয়। (সরল)
সরল :
সংস্কৃতিবানেরা শান্তিপ্রিয় হয়।

১২৯। যা বার্ধক্য, তাকে সব সময় বয়সের ফ্রেমে বাধা যায় না। (সরল)
সরল :
বার্ধক্যকে সব সময় বয়সের ফ্রেমে বাধা যায় না।

১৩০। যা বাঙালির আত্মজাগরণ, তা অভিনন্দনের দাবি রাখে। (সরল)
সরল :
বাঙালির আত্মজাগরণ অভিনন্দনের দাবি রাখে।

১৩১। সে মরবে তবু এ কথা বলবে না। (জটিল)
জটিল:
যদিও সে মরবে,তবুও সে এ কথা বলবে না।

১৩২। সরীসৃপের দেহের তাপমাত্রা অনিয়ন্ত্রিত। (নেতিবাচক)
নে
তিবাচক : সরীসৃপের দেহের তাপমাত্রা নিয়ন্ত্রিত নয়।

১৩৩। সময় নষ্ট করা বোকামি। (প্রশ্নবোধক)
প্রশ্নবোধক :
সময় নষ্ট করা কি বোকামি নয় ?

১৩৪। সত্য কথা স্বীকার কর নতুবা শাস্তি পাবে। (সরল)
সরল :
সত্য কথা স্বীকার না করলে শাস্তি পাবে।

১৩৫। লোকটি অত্যন্ত দরিদ্র। (বিস্ময়সূচক)
বিস্ময়সূচক :
আহা! লোকটি কী দরিদ্র।

১৩৬। স্বল্পপ্রাণ , স্থুলবুদ্ধি ও জবরদস্তিপ্রিয় মানুষে সংসার পরিপূর্ণ। (নেতিবাচক)
নেতিবাচক :
স্বল্পপ্রাণ, স্থুলবুদ্ধি ও জবরদস্তিপ্রিয় মানুষে সংসার অপরিপূর্ণ নয়।

১৩৭। লোকটি অশিক্ষিত কিন্তু অশিষ্ট নয়। (সরল)
সরল :
লোকটি অশিক্ষিত হলেও অশিষ্ট নয়।

১৩৮। সরস্বতী বর দেবেন না। (প্রশ্নবোধক)
প্রশ্নবোধক :
সরস্বতী বর দেবেন কি?

১৩৯। সর্বদা তার মনে দুঃখ। (বিস্ময়বোধক)
বিস্ময়বোধক :
আহ! সর্বদা তার মনে কী দুঃখ।

১৪০। শিশুরা দূষণমুক্ত পরিবেশ চায়। (নেতিবাচক)
নেতিবাচক :
শিশুরা দূষিত পরিবেশ চায় না।

১৪১। সে কথাই এরা ভাবে। (নেতিবাচক)
নেতিবাচক :
সে কথাই এরা না ভেবে পারে না।

১৪২। শাহানার স্বাস্থ্য ভালো। (নেতিবাচক)
নেতিবাচক :
শাহানার স্বাস্থ্য মন্দ নয়/ খারাপ নয়।

১৪৩। সে কিছুতেই সন্তুষ্ট নয়। (অস্তিবাচক)
অস্তিবাচক :
সে সব কিছুতেই অসন্তুষ্ট।

১৪৪। সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি রক্ষার্থে সকলের কাজ করা উচিত। (অনুজ্ঞাবাচক)
অনুজ্ঞাবাচক :
সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি রক্ষার্থে সবাই কাজ করো।

১৪৫। শম্ভূনাথ এ কথায় একেবারে যোগই দিলেন না। ( অস্তিবাচক)
অস্তিবাচক :
শম্ভূনাথ এ কথায় যোগ দেওয়া থেকে একেবারে বিরত ছিলেন।

১৪৬। সাহসীরাই সফল হয়েছে। (কার্যকারণ)
কার্যকারণ :
তারা সাহসী, তাই সফল হয়েছে।

১৪৭। হৈমন্তী কোনো কথা কহিল না। (অস্তিবাচক)
অস্তিবাচক:
হৈমন্তী চুপ রইলো ।

১৪৮। জননী ও জন্মভূমি কি স্বর্গের চেয়েও প্রিয় নয় ? (নির্দেশাত্মক)
নির্দেশাত্মক :
জননী ও জন্মভূমি স্বর্গের চেয়েও প্রিয়।

Leave a Comment

Your email address will not be published.

Scroll to Top